মঙ্গলবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৪, ১৫ আশ্বিন, ১৪২১ সাইনইন | রেজিস্টার |bangla font problem


সরকার কি জামায়াতকে ডরায়?

গত কয়েকদিনে জামায়াতের নেতাদের ডায়লগবাজি-দম্ভ বাড়ছেই। এদিকে জামায়াত-শিবির চক্রকে “প্রতিহত করতে” প্রধানমন্ত্রী-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর গর্জন শুনেই যাচ্ছি। কিন্তু বাস্তবসম্মতভাবে এই স্বাধীনতাবিরোধী অশুভ শুক্তিকে কিভাবে নির্মূল করা যেতে পারে সেই তরিকা কিন্তু সরকার দিচ্ছেনা।

খুবই আফসোসের কথা, কেননা এই ফাঁকে জামায়াত আরো বেশী শক্তি সঞ্চয় করছে। সাথে তাদের অভিভাবক বিএনপি ও জোট তো আছেই।

যুদ্ধাপরাধের বিচারের বিরুদ্ধে কথা বলা, বিচার বন্ধ করে আসামীদের মুক্তির দাবি যদি দেশদ্রোহীতা হয়, তাহলে তথাকথিত মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার কেন পিছপা হচ্ছে?

সরকার কেন হরতাল ডাকতে দিল জামায়াতকে?

গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর লাখ টাকা দামী অফিসারেরা কি ঘাস খায়? স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেহেতু গতকালই বললেন যে জামায়াত সমাবেশের অনুমতি চায়নি, সুতরাং তাদের তা করতে দেয়া হবেনা, তাহলে আজকে তারা যে একটা পাল্টা কর্মসূচী দেবে এটা তো সাধারনভাবেই বুঝার কথা। আর সেটা প্রকাশ্যে ঘোষোনা দেবার আগেই কেন সরকার কঠোরভাবে তা প্রতিহিত করতে পারলো না?

এত আফসোস কই রাখি!
১১ টি মন্তব্য
sulary আলভী০৩ ডিসেম্বর ২০১২, ২২:৪৭
গত চার বছরে জামায়াত কে কোন কর্মসূচীর অনুমতি দিয়েছে? নিবন্ধিত একটি রাজনৈতিক দল সাংবিধানিক ভাবে তারা রাজনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনার অধিকার রাখে! যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হোক এ ব্যাপারে দেশ প্রেমিক সকল নাগরিক সেটা চাই।
probirbidhan প্রবীর বিধান০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০০:১৪
ভাই আলভী, সেই কর্মসূচি যদি হয় যুদ্ধাপরাধের বিচার বন্ধ করা ও আসামীদের মুক্ত করা তাহলে সেসব কর্মসূচি করতে না দেয়াটাই যুক্তিযুক্ত।
probirbidhan প্রবীর বিধান০৩ ডিসেম্বর ২০১২, ২৩:০০
জামায়াত শিবির লাশ পাইয়া গ্যাসে। ওগোর আইজক্যা ঈদ। হরতালডা না আবার বুধবার পর্যন্ত টাইন্যা নিয়া যায়।

প্রব্লেমটা হইলো, লাশটা ওরা বানাইসে।

আপনাগো কি বিশ্বাস হয়, রাবার বুলেট লাইগ্যা একজন মইরা গ্যাসে?

হ, শিবিরের কর্মী "মুজাহিদ", যার বাপ কিনা দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আতাউর রহমানের পোলা, সন্ধ্যা ৬টার দিকে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে রাবার বুলেটবিদ্ধ হয়। ঘটনাটা ঘটে চিরিরবন্দরের রানীরবন্দর বাজার এলাকায়।

রাত সাড়ে ৯টায় দিনাজপুর শহর জামায়াতের প্রধান মতিউর রহমান জানালেন রংপুর হাসপাতাল নেবার পথে মুজাহিদ মারা গেছে।

এই সাড়ে ৩ ঘন্টা মুজাহিদ কই ছিল? কে ওরে প্রাথমিক চিকিৎসা দিছে? রাবার বুলেট কি হৃদপিন্ডে গিয়া ঢুকসিলো? অসম্ভব...
jadumoni জাজাফী০৩ ডিসেম্বর ২০১২, ২৩:২৬
এ সরকারে আমায় পেটায়
তোমায় পেটায় আরো
জামাত শিবির ঠেকাবে যে
ক্ষমতা নেই কারো।

এ সরকারের সবচে ভীতি
জামাত এবং শিবির
এসব নিয়ে কানা ঘুসা
শুনছি মিয়া বিবির।

মুজাহিদে মারা গেছে
বলবে ওরা জিহাদী
জানিনা ভাই ওই সুযোগে
হরতাল কী মিয়াদি।

অনুমতির ধার ধারেনা
ডরায়নাতো কারো
ওরাই আবার রাজ পঘে ভাই
ঘটবে যে কী আরো!!!!!!!!!
tanvirul88 তানভীরুল হাকীম০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০০:১৪
জাজাফী ভাই। জামাত রাস্তায় থাক বা যাক তা কিছু না। কবিতা কিন্তু জম্পেশ হইছে।
probirbidhan প্রবীর বিধান০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০০:১৫
দারুন ছড়া, বস।

হ্যা, আসলেই আরো অনেক কিছুই ঘটতে যাচ্ছে বলেই মনে হয়।
anindyaantar অনিন্দ্য অন্তর অপু০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০০:২১
কনফিউজড
probirbidhan প্রবীর বিধান০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০৩:২৫
দূর্ভাগ্যজনক হলেও আমি এখনও কনফিউজড।
greenbangla মোজাম্মেল কবির০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০১:০৯
সরকার আসলে জামাতের বিরুদ্ধে মুখে যতটা কঠিন বাস্তবে ততটা না... তাদের ভয় আছে বেশী চাপলে বি এন পি এর শক্তি বেড়ে যাবে। সব স্বার্থপর...
probirbidhan প্রবীর বিধান০৪ ডিসেম্বর ২০১২, ০৩:২৭
হ্যা, এইটাতো একটা বড় টেনশন আওয়ামী লীগের জন্য।
probirbidhan প্রবীর বিধান০৬ ডিসেম্বর ২০১২, ১৯:৪৮
অন্যান্য যুদ্ধাপরাধীদের তুলনায় সাঈদীর মামলার আলামত ও সাক্ষী দূর্বল হয়েছে। তাছাড়া ট্রাইবুন্যাল কয়েকবার তদন্ত কর্মকর্তা ও আইনজীবীদের অদক্ষতায় বিব্রত ও বিরক্ত হয়েছে। এই অবস্থায় সাঈদীর বিরুদ্ধে একাত্তরে ৩ হাজারেরও বেশি নিরস্ত্র ব্যক্তিকে হত্যা বা হত্যায় সহযোগিতা, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, ভাংচুর ও ধর্মান্তরে বাধ্য করাসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ১৯টি ঘটনায় অভিযোগে বিচার শুরু হলেও এইসব দূর্বলতার কারনে রায় যে কি হবে তা নিয়ে চন্তায় আছি।

সাম্প্রতিক পোস্ট Star

সাম্প্রতিক মন্তব্যComment