রবিবার ২০ এপ্রিল ২০১৪, ৭ বৈশাখ, ১৪২১ সাইনইন | রেজিস্টার |bangla font problem


সময়ের আহ্বান

মিছিলের সাথীর চেয়ে আছে বন্ধু কি ঘনিষ্ঠ?
হতে পারে কেউ সহযোদ্ধার চেয়ে আপন কোন সঙ্গী?
স্বপ্নের চেয়ে আবেদনময়ী কোন মানবী নেই।
কোন সে মানবী স্বপ্নের চেয়ে আবেদনময়ী!
বন্ধুরা- তোমরা কি ফুলে ফুলে শুধু মধু খোঁজো?
সঙ্গীরা- তোমরাও কি এখন নিশীথ চন্দ্র শুধু?
স্বপ্নের সারথিরা- তোমরা কি এখনও মজ্জমান?
স্বপ্ন, তুমি কি পেতেছো সংসার নপুংসকের সাথে মসৃন দেয়ালের অভ্যন্তরে?
আমি সময় বলছিঃ অসময়ের সীমানায় দাঁড়িয়ে,
আজ যদিও ম্রিয়মাণ- ক্ষয়িষ্ণু, কিছুটা নড়বড়ে;
তবুও রক্তের ভেতর অশান্ত সুনামী খেলা করে।
এসো বন্ধু, এসো মিছিলের সাথী, এসো সারথি, এসো হে মানবী;
আমি আবার মিছিলে যাবো-মনকম্পের উন্মাদনায় জেগে উঠবে রাজপথ।
কতকাল নামানো সময়ের হাত পাতালের দিকে!
আবার উৎক্ষিপ্ত হবে- মুষ্টিবদ্ধ, ক্ষ্যাপা, তেজী, উন্মত্ত।


তোমরা কি শুনতে পাচ্ছো সময়ের দৃপ্ত, দৃঢ় আহ্বান-
বুক পেতে;
তোমরা তো কেউ নেমেছো ভ্যাপসা মাটির গহ্বরে।
অসময়ের খাপছাড়া প্ররোচোনায়
কেউ উঠেছো বিষন্ন চিতায়।
তোমাদের আকাঙ্ক্ষাগুলো এখনো জ্বলে
শিখা চিরন্তনীর মত অনাগত সময়ের পাজরের ভেতরে।
অগ্নিকুন্ডে নিজেকে মুড়ে উঠে এসো চিতা থেকে
মুঠো ভর্তি নতুন আহ্বানের পলি নিয়ে ফুড়ে উঠো কবর থেকে-
তোমরাই যে সময়ের দগদগে হৃদপিন্ড।


আমিও অকালের সিড়ি ভেঙ্গে আসবো নেমে
অলস দর-দালানের কুঠুরি থেকে।
স্বপ্ন, তুমিও চলে এসো স্বামীর গোছানো সংসার দু পায়ে দলে,
আসো তোমার উন্মাতাল প্রেমিকের কাছে।
বন্ধুরা তোমরাও আসো- সময়ের আহ্বানে আসো;
জেনো, কেবল স্পর্ধাই সময়।
প্রশাসনিক ভবন থেকে আসো,
সচিবালয়ের কুঠুরি থেকে আসো,
সংবাদ পত্রের কন্ট্রোল রুম থেকে,
বিজ্ঞাপনের দামী বাক্স থেকে,
দমবন্ধ সরকারী অফিস থেকে,
বেসরকারী সংস্থার আরাম কেদারা ছেড়ে আসো।
অলিগলি থেকে, রাস্তার মোড়ের কোলাহল ছেড়ে,
চা স্টলের প্রফুল্ল আড্ডা বগলদাবা করে, ঝাঁকে ঝাঁকে আসো বেরিয়ে-
গায়ে গা লাগিয়ে অখন্ড মেঘের মত জমাট বেঁধে আসো।
আমরা আবার মিছিলে যাবো-
সূর্যের প্রখর রোদে জ্বলজ্বল করবে নগ্ন রাজপথ।


আসো শ্লোগান ধরো-
শ্লোগানের চেয়ে মধুরতম কোন সঙ্গীত নেই।
ফেস্টুন রাখো উঁচিয়ে-
ফেস্টুনের চেয়ে কান্তিমান কোন পতাকা নেই।
ব্যানারে মুড়ে নাও ফুলে উঠা শরীর-
ব্যানারের চেয়ে অভেদ্য কোন বর্ম নেই।
আসো হাতে অস্ত্র লও, হও সশস্ত্র-
মিছিলের চেয়ে নেই শোষণ ধ্বংসী কোন যুদ্ধাস্ত্র।
রাজপথে পায়ের পর পা ফেলে যাও এগিয়ে-
এর চেয়ে অনিন্দ্য কোন তাল নেই।


আসো কাঁধের জোয়াল ফেলে কৃষক,
আলপথ ধরে মাল কোছা মেরে দৌড়ে আসো ক্ষেত মজুর,
মাথার বোঝা অবলীলায় ঝেড়ে ফেলে কুলি,
কারখানার চাকা বন্ধ করে শ্রমিক,
সেলাই কলের তীক্ষ্ণ সূচ হাতে কিশোরী,
সেনা ছাওনি থেকে হুল্লোড় করে আসো জোয়ান,
পুলিশ লাইন থেকে সটান দাঁড়িয়ে আসো কনস্টেবল,
সীমান্তের কাটা তার ছেড়ে আসো রাইফেলস,
বয়স্কা নারীরা আসো ঘোমটা ফেলে
শহীদের মা হয়ে।
স্কুল ব্যাগ কাঁধেই আসো ছাত্র,
কি-বোর্ড সাথে করে আসো ব্লগার,
চোখা কলম বাগিয়ে ধরে এগিয়ে আসো সাহিত্যিক,
সময় তোমাদের ডাকছে, অসময়ের কিনারে দাঁড়িয়ে;
তার স্পন্দমান হৃদপিন্ডকে দু হাতে সামনে মেলে ধরে।
৮ টি মন্তব্য
saiful82 নোমান সাইফুল্লাহ২০ ডিসেম্বর ২০১২, ০১:৫৩
দারুন কবিতা...........
mijanurrashidchowdhury মিজানুর রশীদ চৌধুরী২০ ডিসেম্বর ২০১২, ০৪:০৩
কবিতা ভালো লেগেছে,
অফটপিকঃ আমি কোন পোস্ট করলে সেটা পোস্ট না হয়ে সোজা ড্রাফট এ গিয়ে জমা হচ্ছে, কারন কি কেউ কি বলতে পারেন,
MainulAmin মাইনুল আমিন২০ ডিসেম্বর ২০১২, ০৯:৫২
দারুণ কবিতা! ভালো লাগলো বেশ । চালিয়ে যান অবিরাম --------------
সময়ে বন্ধুর পরিচয় মেলে ---------------
আপনার জন্যে অশেষ শুভেচ্ছা রইল -----------------------
RaselBlogger এম রাসেল মাহমুদ২০ ডিসেম্বর ২০১২, ০৯:৫৫
আসো শ্লোগান ধরো-
শ্লোগানের চেয়ে মধুরতম কোন সঙ্গীত নেই।
ফেস্টুন রাখো উঁচিয়ে-
ফেস্টুনের চেয়ে কান্তিমান কোন পতাকা নেই।
mehedimanzur মেহেদী হাসান মঞ্জুর ২০ ডিসেম্বর ২০১২, ১৭:১২
আমাকে উৎসাহিত করার জন্যে সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ, ভালো থাকবেন।
anindyaantar অনিন্দ্য অন্তর অপু২১ ডিসেম্বর ২০১২, ২২:৫০
কবিতা ভালো লেগেছে। অভিনন্দন কবি। শুভেচ্ছা রইল
monakash71 মনের আকাশ২৪ ডিসেম্বর ২০১২, ২০:২৬
আসো শ্লোগান ধরো-
শ্লোগানের চেয়ে মধুরতম কোন সঙ্গীত নেই।
ফেস্টুন রাখো উঁচিয়ে-

mehedimanzur মেহেদী হাসান মঞ্জুর ২৪ ডিসেম্বর ২০১২, ২১:১১
অনিন্দ্য অন্তর অপু ও মনের আকাশকে ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

সাম্প্রতিক পোস্ট Star

সাম্প্রতিক মন্তব্যComment