বুধবার ৩০ জুলাই ২০১৪, ১৫ শ্রাবণ, ১৪২১ সাইনইন | রেজিস্টার |bangla font problem


ম্যাক্সিকান চিকেন :P রান্নার সচিত্র অভিজ্ঞতা



কয়দিন ধরে মাথায় একটা চিন্তা ঘুরঘুর করছিলো। বড় সাইজের মুরগি না কেটেই রান্না করা যায় কিভাবে। চিন্তা মতো পাড়ার দোকান থেকে কিনে নিয়ে আসলাম বড় একটা মুরগি। পরে নানা চিন্তাভাবনা করে এটাকে ম্যাক্সিকান স্টাইলেই রান্নার সিদ্ধান্ত নিলাম

রান্নার সময় কয়েকটা ছবিও তুলে রেখেছিলাম। তাই সেই ছবিগুলো সহ আমার ব্যবহৃত রান্নার রেসিপিটা এখানে তুলে দিলাম।


প্রথমেই মুরগিটাকে নিয়ে ভালোভাবে পানিতে পরিষ্কার করতে হবে। গরম পানিতে ধুতে পারলে সবচেয়ে ভালো হয়।

চামড়াটা আগুনে সামান্য পুড়িয়ে নিতে হবে (উদ্দেশ্য হচ্ছে পালকের কোনো অবশিষ্ট থাকলে সেগুলো দূর করা)।



এখন ডেকচিতে আদা (৩ চামচ), রসুন (১), হলুদ (১), গুড়া মরিচ (২) লবণ দিতে হবে (এর সঙ্গে আপনার পছন্দমতো আরো মসলা দিতে পারেন)।



ভিনেগার বেশী করে দিতে হবে (যেন মসলা মাখিয়ে মুরগিটা ভালোভাবে ভেজানো যায়)



এবার চিকেনের সাথে ভালোভাবে মাখাতে হবে। মুরগির ভেতরে বাহিরে সব জায়গায় যেন ভালোভাবে মসলা মাখে।



এভাবে রেখে দিতে হবে তিন ঘণ্টা।


পিয়াজ ছাড়া আবার রান্না হয় নাকি? তাই এই ফাকে পরিমাণ মতো পিয়াজ কেটে ফেলতে হবে।



তিন ঘণ্টা পর রান্না শুরুর সময় চুলায় আগুন দিতে ভুলা যাবে না কোনো মতেই




চুলায় উঠিয়ে তারপর তেল (আধা কাপ), পিয়াজ (বড় একটা), তেজপাতা (২-৩ টা), আর ডুবু ডুবু গরম পানি দিতে হবে






৮-১০ মিনিট পর যে কোনো একটা সস বা টমেটো কেচাপ দেয়া যেতে পারে।

এরপর ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে মুরগি সিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত। ফার্মের মুরগি বা ব্রয়লার হলে সময় কম লাগবে (পানিও কম দিতে হবে)। দেশী মুরগি বা যে কোনো ধরনের হার্ড চিকেন হলে সময় অনেক বেশী লাগবে (ঘণ্টাখানেক পর্যন্ত লাগতে পারে)।



পানি শুকিয়ে যাবার আগেই লবন, মরিচ ইত্যাদি টেস্ট করতে হবে। উল্টা পাল্টা হলে দুই-তিন চামচ চিনি দিতে পারেন



রান্না শেষ। পরিবেশনের জন্য এইবার গরম অবস্থায় বাটিতে তোলা হলো। সুগন্ধ ছড়াচ্ছে।



পরিবেশন করতে হবে স্বাদ অনুযায়ী বিভিন্ন আচার বা কেচাপের সাথে
সঙ্গে যদি দেয়া যায় গরম গরম রুটি তাহলে তো কথাই নেই। আমার সাথে আপনিও বলতে বাধ্য হবেন, গরম গরম ম্যাক্সিকান খাবারের স্বাদই আলাদা।



আমার দুইজন ম্যাক্সিকান Amigo বা বন্ধু Wahulu Fērtz আর NItzá Amdd সরেজমিনে তদন্ত করে খাবারের উচ্ছসিত প্রশংসা করলো এবং জানালো যে খাবার যথার্থই ম্যাক্সিকান স্বাদের হয়েছে......



অতি গোপন বিষয় হচ্ছে, সিদ্দিকা কবীর কিভাবে ম্যাক্সিকান রান্নার রেসিপিটা জানলেন আমার কাছে সেটা এক আশ্চর্য। কারণ এটা সিদ্দিকা কবিরের "রান্না খাদ্য পুষ্টি" বই থেকে ধারণা নিয়ে রান্না করা (যদিও সেখানে সরাসরি ম্যাক্সিকান রান্নার বিষয়টা উল্লেখ নাই)।
ওনার বইটা আমার কাছে একটা রান্নার বিশ্বকোষের মতো। সেখানে যাবতীয় রান্নার রেসিপি দেয়া আছে। তবে শুধু মূল জিনিসগুলোই পাওয়া যায় সেখানে। এজন্য অবশ্য বুদ্ধি করে আমি চুলায় আগুন দিয়ে নিয়েছিলাম। কারণ সিদ্দিকা কবিরের বইতে চুলায় আগুন দেয়ার কথাটা লেখা নাই ....
৩৭ টি মন্তব্য
sujanpranto12 সুজন০৪ এপ্রিল ২০০৯, ০৯:৫৪
আমি বলেছি আর খাবোনা। তিনবার মন্তব্য ডিলিট।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ০৯:৫৭
হায় হায় বলেন কি?
আপনার দাওয়াত থাকলো সবার আগে।
মন্তব্য ডিলিট কেন? কোথায়?
sujanpranto12 সুজন০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:০৩
আপনি যতবার এই পোষ্ট ট্রাই করছিলেন পোষ্টে ছবি দেয়ার সহজ উপায় পোষ্টে। আমি ততোবারই মন্তব্য করেছি সেখানে।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:০৯
ওহ হো, সরি সে সময় আপনার কমেন্ট আমার চোখেই পড়েছি
ছবিগুলো উল্টাপাল্টা হয়ে গিয়েছিলো। তাই সেগুলো ঠিক করার জন্য ওখানে প্রিভিউ করে নিয়েছিলাম।
তাহলে আপনাকে তিনবার দাওয়াত দিলাম। সত্যি...
sujanpranto12 সুজন০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১৭
তিন বার লাগবে না, একবারই সত্যিকারের দাওয়াত দেন।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:২৪
না না, সত্যিকার দাওয়াত তিন বার
কবে কবে আসবেন বলেন
sujanpranto12 সুজন০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:৩০
কবে আসব কি বলছেন? আমি রওয়ানা দিয়েছি। এইতো পৌঁছে যাব এখন।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১১:০০
চলে আসেন। খাবার রেডি আছে...
mukut মুকুট ০৪ এপ্রিল ২০০৯, ০৯:৫৯
জিভে জল কামিং!
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:০২
দাওয়াত হাজির
চলে আসেন
dhupchhaya ধুপছায়া০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:০২
দেখেই তো জিভে পানি চলে আসছে। খেতে যে দারুণ হবে তা আর বলতে !
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:০৫
ম্যাক্সিকান বন্ধুরা অবশ্য প্রশংসা করেছে। আশা করি ভালোই লাগবে। দাওয়াত রইলো...
muhibbur মুহিববুর০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:০৮
খাববববববববববববববববববববব
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১১
চলে আসেন
asmarshad আ,শ,ম,এরশাদ০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১০
ভাগ্য ভাল বুদ্ধি করে চুলায় আগুন দিয়ে নিয়েছিলাম। বাসা বাড়িতে দেন নাই।
আপনার ধরা বর্ননাটা চমৎকার।মুরগির সাথে বলার ধরনটাও সুস্বাদু হয়েছে।দেখি কালকেই ট্রাই করব।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১৯

এইটা ঠিকই বলেছেন। বাসায় আগুন দিলে নিশ্চয়ই আরো ভালো চিকেন হতো
শুভেচ্ছা রইলো।
smc প্রতীপ০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১২
দারুন লোভনীয় !
যাক, বুদ্ধি করে চুলায় আগুন দিয়েছিলেন !!
না হলেতো রেসিপিটা জানা হতো না
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:২১
এর পরের বার কোথায় আগুন দেয়া যায় তাই ভাবছি
দাওয়াত রইলো।
শুভেচ্ছা।
parvezbongo পারভেয০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১৬
মুরগি রান্না কত সহজ।
www.parvezbongo.blogspot.com
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:২২
ধন্যবাদ, শুভেচ্ছা ও দাওয়াত রইলো
khairul_ খায়রুল...।০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:১৮
ভাল জিনিস, টেষ্ট করা যেতে পারে।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:২২
অবশ্যই টেস্ট করবেন।
দাওয়াত রইলো।
শুভেচ্ছা।
nisha1313 সাতিয়া মুনতাহা নিশা০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:২৩
আমি পুরাটাই খাব কিন্তুউউউউউ
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:২৭
আচ্ছা কোনো অসুবিধা নাই
পুরোটাইইই
nazlaabedin ফাতেমা আবেদীন নাজলা০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:৩৩
আইচ্ছা উনারা তাইলে মেক্সিকান? আর এই মুরগী খাইতে আসছিলেন। আমি একটু ফোন কইরা বাংলাতে জিগাই ভাই আপনি মেক্সিকার কোন জায়গায় থাকেন? দুরন্ত ভাই ব্লগে এই কথা লিখছে

তয় কথা হইলো আমি মুরগীটা পুরাটাই খামু। আর এইটার রেসিপি যে আমার থেকে চাইয়াও পান নাই ঐডা বললেন না।
আমার পিছনে মুরগী নিয়া ৩দিন ঘুরছে ভুলে আমি সেই ছবি তুলি নাই
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:৫২
কথা সত্য। সে সময় আপনার পেছনে ৩ দিন মুরগি নিয়া ঘুরছিলাম। কিন্তু আপনি এই জিনিস রান্নার কোনো বুদ্ধি দেন নাই
অবশ্য রেসিপিটা না দিয়ে আমার যে কতো উপকার করেছেন তা তো দেখতেই পারছেন। নাহলে এই ম্যাক্সিকান রেসিপিটা পৃথিবীতে আলোর মুখ দেখতো না
ম্যাক্সিক্যান ফ্রেন্ড রা ব্যাপারটা খুবই পছন্দ করেছে তাই কোনো চিন্তা নাই
আইচ্ছা আপনার জন্যও দাওয়াত রইলো। এই রকম দুইটা মুরগি পুরা আপনার জন্য থাকলো
karim_bhai কারিম ভাই০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১০:৫৫
এতো দেখি দেশি মসল্লার দেশি রান্না । এইটা আবার মেক্সিকান হইলো কবে থাইকা:!
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১১:০৩
এইটাই তো রহস্য।
আমি নিজেই ম্যাক্সিকান রান্নার উদ্ভাবক। আপনাকেও শুভেচ্ছা ও দাওয়াত রইলো
karim_bhai কারিম ভাই০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১১:২১
দাওয়াত দিতে হইবো না । নগদে কিছু পাউন্ড পাঠাইয়া দেন আমরা দেশে আপনার দেখানো রেসিপি অনুযায়ি রান্না কইরা খাইয়া লমু
karim_bhai কারিম ভাই০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১১:২২
ছবি দিয়ে চমৎকার ভাবে সাজানো পোষ্টের জন্য ধন্যবাদ
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১১:৪৯
পাউন্ড পাঠিয়ে আর লজ্জায় ফেলতে চাই না। কারণ পাউন্ডের দাম এখন টাকার সমান হয়ে যাচ্ছে
এর চেয়ে দাওয়াত দিয়ে খাওয়ানোই ভালো
শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ রইলো।
duranto দুরন্ত০৪ এপ্রিল ২০০৯, ১১:৫০
আর দাওয়াত রইলো অবশ্যই
suminsawon সুমিন শাওন০৫ এপ্রিল ২০০৯, ০৮:১০
অভিজ্ঞতা তো দেখছি বিশাল দুরন্ত দা,,তা আপনি আছেন কোন গোলার্ধে ভাইয়া,,জানতে পারি কি!!
duranto দুরন্ত০৫ এপ্রিল ২০০৯, ০৮:০১

উত্তর গোলার্ধে আছি ভাইয়া। ব্রিটেনের বার্মিংহামে।
অসংখ্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা।
elf_fire মহিম উদ্দিন০৬ এপ্রিল ২০০৯, ০২:২৮
দুরন্ত, আমি খাইতাম চাই
duranto দুরন্ত০৬ এপ্রিল ২০০৯, ০২:৪৬
অবশ্যই খাবেন। দাওয়াত রইলো। চলে আসেন সময় করে...
শুভেচ্ছা।
asharnilachol আশার নীলাচল০২ নভেম্বর ২০০৯, ১০:৪৭
খিদা লেগে গেল